বিশেষ সংবাদ - http://nsfbd.org/perfile/bpeventanddecor.php
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শিমুল বিশ্বাস তৃতীয় দফায় রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর রমনা থানার নাশকতার মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত সহকারী শিমুল বিশ্বাসকে তৃতীয় দফায় পাঁচ দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফা রিমান্ড শেষে তাকে ঢাকা সিএমএম আদালতে হাজির করে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা। এ সময় শাহবাগ থানার নাশকতার একটি মামলায় সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত সিকদার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে ১৫ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানার নাশকতার মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনসারী।

এছাড়া ৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত সিকদার শাহবাগ থানার নাশকতার মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ডের নেয়ার আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়ের পরপরই আদালত প্রাঙ্গণ থেকে শিমুল বিশ্বাসকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ২০টি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। সর্বশেষ মতিঝিল থানার একটি নাশকতার মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

 

শিমুল বিশ্বাস তৃতীয় দফায় রিমান্ডে
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর রমনা থানার নাশকতার মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত সহকারী শিমুল বিশ্বাসকে তৃতীয় দফায় পাঁচ দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফা রিমান্ড শেষে তাকে ঢাকা সিএমএম আদালতে হাজির করে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা। এ সময় শাহবাগ থানার নাশকতার একটি মামলায় সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত সিকদার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে ১৫ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানার নাশকতার মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনসারী।

এছাড়া ৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত সিকদার শাহবাগ থানার নাশকতার মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ডের নেয়ার আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়ের পরপরই আদালত প্রাঙ্গণ থেকে শিমুল বিশ্বাসকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ২০টি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। সর্বশেষ মতিঝিল থানার একটি নাশকতার মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

 

দাড় কাউয়া মুক্ত আওয়ামী লীগ চাই, বিলবোর্ডের ছবি ভাইরাল
                                  
নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর ধানমন্ডি ২৭। শংকর আবাসিক এলাকার বিক্রমপুর মিষ্টি দোকানের সামনে ৩০ ফুটেরও অধিক দৈর্ঘ্যের বিশাল একটি বিলবোর্ড। বিলবোর্ডে লেখা, ‘দাড় কাউয়া মুক্ত মোহাম্মপুর থানা আওয়ামী লীগ চাই।’  লেখাটির ডানপাশেই বিশাল একটি দাড় কাকের ছবি আর মোহাম্মপুর বলতে মোহাম্মদপুর থানাকে বোঝানো হয়েছে।
 
বিলবোর্ডের ছবিটি শনিবার সকাল থেকে ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। 
 
আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে ‘কাউয়া’ শব্দটি জনপ্রিয় করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গেল বছরের মার্চে সিলেটে বিভাগীয় তৃণমূল সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন যে, সংগঠনে ‘কাউয়া’ (কাক) ঢুকছে । তিনি বলেন, ‘প্রচার লীগ, তরুণ লীগ, কর্মজীবী লীগ, ডিজিটাল লীগ, হাইব্রিড লীগ আছে। কথা হাছা, সংগঠনে কাউয়া ঢুকছে। জায়গায় জায়গায় কাউয়া আছে। পেশাহীন পেশিজীবী দরকার নেই। ঘরের ভেতর ঘর বানানো চলবে না। মশারির ভেতর মশারি টানানো চলবে না।’ 

 

প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে কমিটি
                                  

বিশেষ প্রতিনিধি : প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে পরীক্ষা মূল্যায়ন কমিটি। তার মধ্যে কোনটির আংশিক ও একটির পুরোপুরি প্রশ্নফাঁস হয়েছে। এসব মূল্যায়ন করে ২৬ ফেব্রুয়ারি তদন্ত প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দেবে কমিটি।

প্রতিবেদন জমা দেয়ার আগে ২৫ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় পুনরায় বৈঠকে বসবেন বলে জানিয়েছেন কমিটির আহ্বায়ক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর।

রোববার এসএসসি পরীক্ষা মূল্যায়ন কমিটির দ্বিতীয় দিনের সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

সচিব বলেন, প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত প্রতিনিয়ত নতুন নতুন নম্বর ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিংক পাওয়া যাচ্ছে। সেসব যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। এতে অনেক ভিআইপির নম্বর পাওয়া যাচ্ছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাদের নজরদারিতে রেখেছে। সব বিষয় মূল্যায়ন করে সুপারিশ করা হবে।

তিনি বলেন, যদি ফাঁস প্রশ্নের সঙ্গে নৈর্ব্যক্তিক অংশটুকু মিলে যায় তবে আমরা শুধু নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষা বাতিলের সুপারিশ করবো। যদি সেসব প্রশ্ন পরীক্ষার আগের রাতে বা এক দুই ঘণ্টার আগে ফাঁসের প্রমাণ পাওয়া যায়। তবে, পরীক্ষা শুরুর পরে প্রশ্নফাঁস হলে তা আমলে নেয়া হবে না।

এ পর্যন্ত প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত ৬০-৭০ জনকে আটক করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। বাকিদের নজরদারিতে রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে অনেক হাই প্রোফাইলের ব্যক্তিবর্গ রয়েছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, অধিকাংশ প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে মূল প্রশ্নের মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে কয়েকটি পরীক্ষার প্রশ্নের সঙ্গে এমসিকিউয়ের মিল পাওয়া গেছে। আর একটি পরীক্ষার পুরোপুরি মিল পাওয়া গেছে। এসবের কারণে পরীক্ষার্থীদের মধ্যে কতটা প্রভাব পড়েছে তার ওপর ভিত্তি করে সেসব বিষয়ের পরীক্ষা বাতিলের সুপারিশ করা হবে। ২৫ ফেব্রুয়ারি এসএসসি পরীক্ষার তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হলে ২৬ ফেব্রুয়ারি কমিটি পূণাঙ্গ সুপারিশমূলক প্রতিবেদন জমা দিবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, ১১ ফেব্রুয়ারি সচিবালয়ে ১১ সদস্যবিশিষ্ট পরীক্ষা মূল্যায়ন কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

নির্বাচনে খালেদার প্রভাব পড়বে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :  দুর্নীতির মামলায় কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারণে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

শনিবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশের সদর সার্কেলের ছয়তলা বিশিষ্ট নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় আগামী সংসদ নির্বাচনে কোনো প্রভাব পড়বে না। খালেদার বিরাট বড় দল তো রয়েছে। নির্বাচন কমিশনের আইন অনুযায়ী যা হওয়ার তাই হবে। এখানে আমাদের তো কিছু করার নেই।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি বিচার বিভাগের বিরুদ্ধে কথা বলছে। আইন অনুযায়ী বিচারপতিরা যে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন সেটিই হচ্ছে। এখানে কোনো রাজনৈতিক প্রভাব নেই। আমরা আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত করেছি। কাউকে আমরা ছাড় দিচ্ছি না, সবাইকেই আইনের মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, কেউ কোনো বিশৃঙ্খলা কিংবা অরাজকতা সৃষ্টি করলে আমরা তা সহ্য করবো না। আইন অনুযায়ী বিশৃঙ্খলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, চট্টগ্রাম রেঞ্জ পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এস এম মনির-উজ-জামান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রেজাউল কবির প্রমুখ।

 

ঢাকা ভেঙে প্রস্তাবিত নতুন বিভাগের নাম হবে ‌পদ্মা :ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন
                                  

ফরিদপুর প্রতিনিধি : ঢাকা ভেঙে প্রস্তাবিত নতুন বিভাগের নাম হবে পদ্মা। আর এর হেড কোয়ার্টার হবে ফরিদপুরে। এই বিভাগ হলে ফরিদপুর অঞ্চলের মানুষকে কোনো কাজের জন্যে আর ঢাকায় যেতে হবে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী ‍উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

শুক্রবার সকালে ফরিদপুরের বদরপুরে আফসানা মঞ্জিলে সদর উপজেলার বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ল্যাপটপ প্রদান ও তিন ইউনিয়নের নদী ভাঙন কবলিতদের মধ্যে অনুদান বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বৃহত্তর ফরিদপুরের মানুষ দীর্ঘদিন ধরে বিভাগের দাবি জানিয়ে আসছেন। সর্বশেষ গত বছরের ২৯ মার্চ ফরিদপুরের সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে আওয়ামী লীগের জনসভাতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ফরিদপুরকে বিভাগ করার দাবি তোলা হয়। প্রধানমন্ত্রী তখন বিভাগের ঘোষণা না দিয়ে বলেন, ঢাকা বিভাগকে ভেঙে ফরিদপুর, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর নিয়ে একটি বিভাগ করা হবে। তবে বিভাগীয় সদরদপ্তর কোথায় হবে তা তিনি স্পষ্ট করে বলেননি।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন ঢাকা বিভাগকে ছোট করা হবে এবং দেশে বিভাগের সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে। এর মাধ্যমে নাগরিক সুবিধা বাড়বে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশে বর্তমানে বিভাগের সংখ্যা আটটি। সম্প্রতি ঢাকা বিভাগের চারটি জেলা নিয়ে নতুন ময়মনসিংহ বিভাগ গঠন করা হয়। ঢাকা বিভাগের দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি জেলা নিয়ে ফরিদপুর বিভাগ করার ব্যাপারে নীতিগত সিদ্ধান্ত আগেই হয়েছে। ময়মনসিংহ নতুন বিভাগ হওয়ায় ঢাকা বিভাগের জেলা সংখ্যা এখন ১৩টি। তবে এখনো বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বিভাগ ঢাকা।

অনুদান বিতরণকালে এলজিআরডি মন্ত্রী বলেন,‘প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ডিজিটালাইজেশন করতে ল্যাপটপ বিতরণ করা হচ্ছে।

দেশ ডিজিটাল হলে দুর্নীতি কমে আসবে বলেও মনে করেন তিনি।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রভাংশু সোম মহানের সভাপতিত্বে এসময় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান খন্দকার মোহতেসাম হোসেন বাবর, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শিব পদ দে প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের রিসিপশন ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে
                                  

বাংলাদেশে সফররত মিয়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লে. জে. কিউ সি বলেছেন, মিয়ানমার প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু করতে প্রস্তুত। এ জন্য রিসিপশন ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী মিয়ানমার পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফেরত নেবে।

তিনি বলেন, মিয়ানমার সরকার কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নেও কাজ করছে।

বৃহস্পতিবার বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে মিয়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লে. জে. কিউ সি এ কথা বলেন।

সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের তাদের স্বদেশ ভূমি রাখাইনে মর্যাদার সঙ্গে ও নিরাপদে ফেরার উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

এ সময় রোহিঙ্গা সংকট অবসানে রাষ্ট্রপতি হামিদ কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। তিনি প্রত্যাবাসনের পরপরই রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়ি, দোকান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুনর্নিমাণ এবং তাদের জমি ও সম্পদ ফেরত দেয়ার ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্যও মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের (এমওইউ) কথা উল্লেখ করে আবদুল হামিদ আস্থা অর্জনে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ কাজ করবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র নীতি ‘সকলের সাথে বন্ধুত্ব, কারো সাথে বৈরিতা নয়’ উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি সুস্পষ্টভাবে বলেন, বাংলাদেশ সবসময় সকল দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক কামনা করে। বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ সবসময় মিয়ানমারের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে বিশ্বাসী। রোহিঙ্গা সংকট বাংলাদেশের জন্য একটি বড় সমস্যা। বাংলাদেশ ও মিয়ানমার পারস্পরিক শান্তি নিরাপত্তা ও উন্নয়নে কাজ করতে পারে। সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হলে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য আরো সম্প্রসারিত হবে।

সাক্ষাৎকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, সংশ্লিষ্ট সচিব এবং পদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

খালেদা জিয়ার বিষয়ে ইসির কিছুই করার নেই:
                                  

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করা না করার বিষয়টি আদালতের ওপর নির্ভর করছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কে এম নূরুল হুদা। বুধবার ইউরোপীয় ইউনিয়ন পার্লামেন্ট প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেছেন। 

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার সঙ্গে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধি দলের এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সামনে এলে এ নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়নে ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে প্রতিনিধি দলের (ইইউ) একজনও জানতে চেয়েছিলেন। সিইসি তাদেরকে বলেছেন, এটি আদালতের বিষয়। আদালত যদি অ্যালাও করেন, তাহলে ইসির কিছু করার নেই। আর  যদি অ্যালাও না-ও করেন, তাহলেও ইসির কোনো ভূমিকা থাকবে না।

বিএনপি চেয়ারপারসনের বিরুদ্ধে সাজার রায় হওয়ার ছয় দিন পর নির্বাচন কমিশনের আনুষ্ঠানিক এ বক্তব্য এল।

ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, তারা সংবিধান ও আইন অনুযায়ী সবকিছু করবেন।

নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে আগ্রহী ইইউ

সিইসি নূরুল হুদার সঙ্গে বৈঠকে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের পার্লামেন্টারি প্রতিনিধি দলটি জ্যঁ ল্যামবার্ডের নেতৃত্বে অংশ নেয়। ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব বলেন, তারা আগামী সংসদ এবং রাষ্ট্রপতি নির্বাচন সম্পর্কে জানতে চেয়েছিল। সিইসি তাদেরকে বলেছেন, রাষ্ট্রপতি পদে সংসদ সদস্যরা ভোট দেন। এবার যেহেতু একজন প্রার্থী ছিলেন। তাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে।

দেশের বর্তমান পরিস্থিতি বা নির্বাচনে সহিংসতার বিষয়ে কোনো প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলোচনা হয়নি বলে জানান তিনি।

হেলালুদ্দীন বলেন, প্রতিনিধি দল মূলত আমাদের নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। নির্বাচনী খরচের সার্বিক তথ্যও জানতে চেয়েছে। আমরা বলেছি, নির্বাচন কমিশনের চাহিদা অনুযারী তা সরকার বহন করে থাকে।

খালেদার রায় রাজনৈতিক নয় বলেই জনগণ মনে করে
                                  

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত হওয়ার রায় সরকারের রাজনৈতিক ইচ্ছার প্রতিফলন নয় বলেই জনগণ মনে করে। এই রায়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষের দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণের আকাঙ্ক্ষা ও দুর্নীতি মুক্ত সমাজব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার প্রতিফলন ঘটেছে। আওয়ামী লীগ নেতারা এমন দাবি করেছেন। আদালত থেকে দেয়া রায়ের পর এক বিবৃতিতে বাম নেতারা বলেছেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ যে নিছক দুর্নীতির জন্য, তার পেছনে যে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নেই, সে কথা প্রমাণ করতে হলে সরকারকে নিজ দলের দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে। দেশবাসীর মধ্যে এই ধারণা সৃষ্টি হয়েছে যে, এই রায়ের মধ্য দিয়ে সরকারের রাজনৈতিক ইচ্ছারই প্রতিফলন ঘটেছে।

তবে আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী মহলের বেশ কয়েকজন নেতা দাবি করেছেন, রায় নিয়ে বিএনপি জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। এই রায় সম্পূর্ণ আইন-আদালতের বিষয়, এখানে সরকারের রাজনৈতিক ইচ্ছার প্রতিফলনের সুযোগ নেই। জনমনে এই ভাবনা নেই বলে দাবি করে উদাহরণ হিসেবে তারা বলেন, কোথাও কোনো বিক্ষোভ দেখা যায়নি। এই রায়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষের দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণের আকাঙ্ক্ষা ও দুর্নীতিমুক্ত সমাজব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার প্রতিফলন ঘটেছে। আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, ধারাবাহিকভাবে সব বিচার কার্য সম্পাদন হবে। যারা এসবের বিচার দাবি করছে, তাদেরও সহযোগিতার দরকার আছে। এসব কথাবার্তা বলে, এই ধরনের রাজনৈতিক চিহ্নিত অপরাধীদের রাজনীতিকরণ না করে দুর্নীতির অভিযোগ যাদের বিরুদ্ধে আছে, তারা যেন বিচারের আওতায় আসে এবং বিচার পরিচালিত হয় সেজন্য সকলের সহযোগিতা দরকার।

 

জনগণ এই বিচারকে রাজনৈতিক মনে করলে আন্দোলন-সংগ্রাম করত বলে জানান আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, কোনো আন্দোলন-সংগ্রাম নেই, কিছু নেই। আমি ১৩টা মিটিং করে এসেছি, কোনো আন্দোলন নেই। আন্দোলন হলে আমরা মনে করতাম জনগণ এমনটা ভাবছে। এতিমদের টাকা আত্মসাৎ তো কেউ মেনে নিতে পারে না। আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, অভিযোগ যখনই আসবে, যদি বিচারের মতো হয়ে থাকে তবে অবশ্যই বিচার হবে। এই মামলাটি হয়েছে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে। বিচারের রায় দিয়েছে আদালত। দীর্ঘদিন ধরে বিচারের কাজ চলেছে। আমাদের দলের ভেতরে যদি কেউ এ রকম করে থাকে তাদেরও বিচার হবে। এমন কোনো ব্যক্তি নেই যার বিচার হবে না, অন্যায় করলে বিচার হবেই। প্রধানমন্ত্রী বলে দিয়েছেন, বিচার বিভাগকে আমরা সম্পূর্ণ স্বাধীন করে দিয়েছি। যারাই আওতায় পড়বে, তাদের বিচার হবে।

দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুর রহমান বলেন, এই রায় একদমই আইন-আদালতের বিষয়। এইখানে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ বা ইচ্ছা পূরণের কারণ নেই। ইতোমধ্যেই দেশবাসী জানে, দুর্নীতি দমন কমিশন সরকারি দলের অনেক সাবেক মন্ত্রী এবং দলের অনেক নেতার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করেছে, মামলা আছে, তদন্ত চলছে। এই জায়গায় সরকারের দুর্নীতি দমন কমিশনের কার্যক্রমে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ নেই। যদি কেউ দুর্নীতি করে থাকে সেই দুর্নীতিবাজরা শাস্তির আওতায় আসুক সেটাও সরকার চায়।

দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, যে সকল মানুষ বলছে (খালেদা জিয়ার রায় রাজনৈতিক ) তাদের দায়িত্ব হচ্ছে এই মামলা এবং মামলার রায় পর্যবেক্ষণ করে কথাবার্তা বলা। বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষ চায় দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যে থাক। আমরা চাই দুর্নীতিমুক্ত সমাজব্যবস্থা। দুর্নীতিমুক্ত সমাজব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে খালেদা জিয়ার মামলার এই রায় একটা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। তিনি বলেন, আমরা যেহেতু যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করতে পেরেছি, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করতে পেরেছি, বাংলাদেশে কোনো মামলাই আর পেন্ডিং থাকবে না। ধারাবাহিকভাবে সব বিচার কার্য সম্পাদন হবে। যারা এসব বিচারের দাবি করছে, তাদেরও সহযোগিতার দরকার আছে। এসব কথাবার্তা বলে, এই ধরনের রাজনৈতিক চিহ্নিত অপরাধীদের রাজনীতিকরণ না করে দুর্নীতির অভিযোগ যাদের বিরুদ্ধে আছে, তারা যেন বিচারের আওতায় আসে এবং বিচার পরিচালিত হয় সেজন্য সকলের সহযোগিতা দরকার।

 

বঙ্গবন্ধুকে এঁকে তাক লাগিয়ে দিলেন ইলোরা
                                  

নড়াইলের মেয়ে ইলোরা পারভীন নিপুণ হাতে সুই-সুতো দিয়ে গেঁথেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সদস্যদের দৃষ্টিনন্দন ছবি। সুই-সুতোয় আলপনা তুলে কারুকাজ খচিত বঙ্গবন্ধুর পরিবারের এ ছবি সবার নজর কেড়েছে।

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের ছবি ব্যতিক্রমী নকশায় খচিত করতে পেরে ইলোরা গর্বিত। সুই-সুতোয় আলপনা এঁকে নতুন বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে বুনেছেন তিনি।

তার আলপনায় সত্যিকার অর্থে জীবন্ত মানুষের প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠেছে। স্বামী, সংসার ও মেয়েসহ পরিবারের সব কাজ সামলে সুই-সুতোয় আলপনা আঁকা চিত্রশিল্পী হিসেবে নিজেকে নতুনভাবে পরিচিত করেছেন ইলোরা পারভীন (৪৪)।

ইলোরার বাবার বাড়ি নড়াইল পৌর এলাকার মাছিমদিয়া গ্রামে। এ গ্রামেই আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের জন্ম। সুলতানের বাড়ির পাশেই ইলোরার জন্মভিটা। ইলোরার বাবা মরহুম হাবিবুর রহমান বরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের বাল্যবন্ধু ছিলেন।

 

ইলোরার পরিবারের সদস্যরা জানান, শৈশব থেকে ছবি আঁকার শখ ইলোরার। এ কারণে তিনি মাঝে-মধ্যে এসএম সুলতানের বাড়িতে গিয়ে উঁকি দিতেন। গভীর দৃষ্টিতে দেখতেন সুলতানের অংকন কৌশল। ছবি আকার প্রতি আগ্রহ থাকায় শিশুপ্রেমী সুলতানও ভালোবাসতেন ইলোরাকে। উৎসাহ দিতেন ইলোরাকে। এ আগ্রহ থেকেই তিনি বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সদস্যদের ছবি আকার স্বপ্ন দেখেন। অবশেষে সে আশা বাস্তবে রূপ দিয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিলেন।

ইলোরা জানান, ১৯৯৮ সালে ইডেন মহিলা কলেজের দর্শন বিভাগ থেকে মাস্টার্স পাসের পর জন্মভূমি নড়াইলের মাছিমদিয়ায় আসেন তিনি। ১৯৯৪ সালের ১০ অক্টোবর এসএম সুলতান মারা যাওয়ার পর সুলতানের শিষ্য দুলালের কাছে চিত্রকর্মের কাজ শেখা শুরু করেন তিনি। সুই-সুতোয় ছবি আঁকা কঠিন। বারবার অনুশীলনে এটা সম্ভব বলে ইলোরাকে জানালেন দুলাল।

চিত্রাংকনে দুলাল ইলোরাকে ব্যাপক উৎসাহ দিতেন। বছর দুয়েক আগে দুলালের মৃত্যুতে ইলোরা ভীষণ কষ্ট পান। দুইজন চিত্রগুরুর (এসএম সুলতান ও সুলতানের শিষ্য দুলাল) মৃত্যুর শোক কেটে উঠে নতুন উদ্দীপনা নিয়ে চিত্রকর্মের কাজ শুরু করেন ইলোরা।

 

একটি বইয়ের কভার পেজে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি দেখে সেলাইয়ের মাধ্যমেই ইলোরা এ পথে হাটতে শুরু করেন ১৯৯৮ সালে। ১৯৯৮ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত মোট ৩৫টি শিল্পকর্ম শেষ করতে সক্ষম হন তিনি। প্রতিটি চিত্রকর্ম শেষ করার তারিখ সুই-সুতো দিয়ে লেখা হয়েছে। তার চিত্রশিল্পে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবার। এ ধরনের চিত্রকর্মের সংখ্যা ১৭টি।

এসবের মধ্যে দাঁড়ানো অবস্থায় বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি রয়েছে। একক বঙ্গবন্ধুর ৭টি ছবি। আছে বঙ্গবন্ধুর বাবা, মা ও শেখ রাসেলের ছবি। শেখ হাসিনা ও জয়ের হাস্যোজ্জ্বল মুখ ও সুলতানা কামালের ছবি। এককভাবে আছে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসার ছবি, একক শেখ হাসিনার ছবি। শেখ হাসিনার পাঁচ ভাই-বোনের যৌথ ছবি। এসবের একটি ইলোলার বড় ভাই স্থানীয় চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা হাসানুজ্জামানের অফিসে ফ্রেমে বাঁধাই করা এবং অবশিষ্ট ছবিগুলো নিজ বাসার ফ্রেমে সাজিয়ে রাখা হয়েছে।

 

ইলোরা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ছবি দিয়ে আমার হাতেখড়ি। একটি ছবি শেষ করার পর ভাবি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আর আঁকবো না। কিন্তু আবার চলে যাই বঙ্গবন্ধুর অন্য ভঙ্গির ছবিতে। বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে চিত্রকর্মটি ফ্রেমসহ দৈর্ঘ্য ৩০ ইঞ্চি আর প্রস্থ ২১ ইঞ্চি। বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা ও শেখ হাসিনার পাঁচ ভাই-বোনের ছবির আকৃতির দৈর্ঘ্য ৩০ ইঞ্চি আর প্রস্থ ২১ ইঞ্চি অথবা এর চেয়ে সামান্য কম বেশি।

এছাড়া একটি করে ভাষা আন্দোলন, রায়ের বাজারের বধ্যভূমি, জাতীয় সম্পদ, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, এসএম সুলতান, নববধূ, পাখি, নিজের মা নূরজাহান, ভাই আলহাজ মো. ওয়াহিদুজ্জামানসহ নিজের ছবি এঁকেছেন ইলোরা।

৫ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৩ ফুট প্রস্থের ভাষা আন্দোলনের ছবিটি আঁকতে সময় লেগেছে ২ বছর। ৪২/২০ ইঞ্চি আকৃতির বধ্যভূমির ছবি আঁকতে সময় লেগেছে চার মাস। পত্রিকায় ছাপা দেখে শেখ হাসিনার পাঁচ ভাই-বোনের ছবি আঁকতে সময় লেগেছে চার মাস।

 

ইলোরা বলেন, সময় বেশি লাগে গলা, হাত, পরনের কাপড়ের ভাঁজ তুলতে। কোনো কোনো ছবির চোখ আঁকতেই ১৫-২০ দিন সময় লেগে যায়। সামান্য এদিক-ওদিক হলেই পুরো কাজ শেষ।

ইলোরা সাত ভাই-বোনের মধ্যে পঞ্চম। ১৯৯৯ সালে তিনি মো. ফয়জুল্যাহ বিশ্বাসের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে সংসার জীবনে পা দেন। তার দুই মেয়ে হুমাইয়রা ফয়েজ অষ্টম শ্রেণিতে ও নাফিসা ফয়েজ দ্বিতীয় শ্রেণিতে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর শাখায় অধ্যয়নরত। এ পর্যন্ত নিজ শিল্পকর্মগুলো কোথাও প্রদর্শনের ব্যবস্থা করতে পারেননি তিনি। কোথায় এসব করতে হয়- সেসব তার অজানা।

সম্প্রতি ইলোরার সুই-সুতায় গাঁথা শেখ রাসেলের একটি ছবি ধানমন্ডি-৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে প্রদর্শন করা হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু পরিষদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সুই-সুতায় গাঁথা এ ছবি দেখে অভিভূত হন। এ ধরনের দুর্লভ ছবি সারা বিশ্বে চায়না ও ভিয়েতনামে কিছু দেখা যায় বলেও মন্তব্য করেন তারা।

সুই-সুতোয় নানা আলপনা অাঁকার মাঝে নতুন বঙ্গবন্ধুকে বুনছেন ইলোরা। তার একেক চিত্রকর্ম জীবন্ত প্রতিচ্ছবি। যেন অসম্ভব এক বাস্তবতা। যে কেউ তার চিত্রকর্ম দেখলে আশ্চর্য হবেন। সুই-সুতোয় আলপনা অাঁকা কারিগর ইলোরা পারভীন নড়াইলের গৌরব।

 

এবার পদার্থবিজ্ঞানের প্রশ্নও ফাঁস
                                  

চট্টগ্রামে আজ মঙ্গলবার পদার্থবিজ্ঞান পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর আগে চট্টগ্রাম নগরের মহিলা সমিতি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে ৫০ জন পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে এ প্রশ্নপত্র পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মুরাদ আলী। কেন্দ্রে বিতরণ করা প্রশ্নের সঙ্গে ওই প্রশ্নপত্রের হুবহু মিল রয়েছে।

সৈয়দ মুরাদ আলী জানান, চট্টগ্রাম নগরের বাংলাদেশ মহিলা সমিতি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে একটি বাসে করে পরীক্ষা দিতে আসে চট্টগ্রাম আইডিয়াল স্কুল পটিয়া শাখার প্রায় ৫০ জন পরীক্ষার্থী। কেন্দ্রে ঢোকার আগে চট্টগ্রাম ওয়াসা মোড়ের কাছে জড়ো হয় তারা। পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে সে জায়গার দূরত্ব ১০০ গজের মতো। তারা সেখানে মোবাইল ফোনে ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র দেখছিল। গোপন খবর পেয়ে আগে থেকে ওত পেতে ছিল প্রশাসনের লোকজন। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সাতটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। মোবাইল ফোনে যে প্রশ্নপত্র পাওয়া যায়, এর সঙ্গে পরীক্ষাকেন্দ্রে বিতরণ করা প্রশ্নের হুবহু মিল রয়েছে। এ ঘটনায় ওই ৫০ শিক্ষার্থীর কাউকে আটক দেখানো হয়নি। তাদের পরীক্ষা দিতে দেওয়া হচ্ছে। তবে পরীক্ষার পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। এবার পরীক্ষায় ২০ লাখ ৩১ হাজার ৮৯৯ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। কিন্তু বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন ছড়িয়ে পড়ছে আর শিক্ষার্থীরা খুব সহজেই তা মোবাইলের মাধ্যমে পেয়ে যাচ্ছে।

চলতি এসএসসি পরীক্ষায় এ পর্যন্ত আট দিনে আটটি বিষয়েরই প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে, যা প্রশ্নপত্র ফাঁসের রেকর্ড।

প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে পরীক্ষার সময় কোচিং সেন্টার বন্ধ, পরীক্ষার্থীদের আধা ঘণ্টা আগে পরীক্ষাকক্ষে বসা এবং কেন্দ্রের ভেতর মোবাইল ফোন না নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল সরকার। কিন্তু কোনো পদক্ষেপই কাজে আসেনি। পরে প্রশ্ন ফাঁসকারীদের ধরিয়ে দিলে পাঁচ লাখ টাকা দেওয়ার ঘোষণাতেও লাভ হয়নি। পরীক্ষার দিন ইন্টারনেট সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধের চেষ্টা করেও প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো যায়নি।

 

কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মোবাইল ফোন পেলেই আটক
                                  

প্রশ্নফাঁস বন্ধে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে কিংবা পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোনসহ কাউকে পাওয়া গেলে তাকে আটক করতে নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সোমবার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক, সব বিভাগীয় কমিশনার, সব শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান, সব জেলা প্রশাসককে এ নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে সারা দেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে সব পরীক্ষার্থীদের আবশ্যিকভাবে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করে আসন গ্রহণ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, বর্ণিত সময়ের পরেও কিছু কিছু কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীরা প্রবেশ করছে। এছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রের আশপাশে অনেকেই স্মার্টফোন নিয়ে ঘোরাফেরা করছে।

‘পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে সব পরীক্ষার্থীর আবশ্যিকভাবে পরীক্ষার হলে প্রবেশ ও আসন গ্রহণ নিশ্চিত করা, ওই সময়ের পর কোনো পরীক্ষার্থীকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া যাবে না।’

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে কিংবা পরীক্ষা কেন্দ্রের ভেতরে মোবাইল ফোনসহ কাউকে পাওয়া গেলে তাকে আটক করতে হবে।

প্রশ্নফাঁসের গুজবমুক্ত সুষ্ঠু পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে জরুরি ভিত্তিতে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপসচিব আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন স্বাক্ষরিত নির্দেশনা সোমবার সংশ্লিষ্টদের পাঠানো হয়েছে।

জরুরি প্রয়োজনে কেন্দ্র সচিব সাধারণ মানের একটি মোবাইল ফোন নিয়ে যেতে পারবেন বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলে আসলেও সে ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্নফাঁসরোধে ইন্টারনেট ধীরগতিরও সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। অবশ্যই সেই সিদ্ধান্ত গ্রহণের একদিন পর আজ তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।

তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ৩০০ মোবাইল ও টেলিফোন নম্বর শনাক্ত করেছে, যেগুলো প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। এ নম্বরগুলো বন্ধ করে দেয়া ছাড়াও অভিযান পরিচালনা করছে পুলিশ।

 

যেই বাসে রূপাকে ধর্ষণ সেটি পাচ্ছে পরিবার
                                  

টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে গণধর্ষণ ও হত্যার সারা দেশে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।

যে বাসে এ অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছিল সেই ছোঁয়া পরিবহনের বাসটি নিহত রূপার পরিবারকে সাতদিনের মধ্যে হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে গণধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ৪ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সোমবার বেলা সোয়া ১১টায় এ রায় ঘোষণা করেন টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া। এ সময় আদালতে মামলার আসামিরা উপস্থিত ছিল।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- ছোঁয়া পরিবহনের চালক হাবিবুর রহমান (৪৫), হেলপার শামীম (২৬), আকরাম (৩৫) ও জাহাঙ্গীর (১৯)। সুপারভাইজার সফর আলীকে (৫৫) সাত বছরের কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এ রায় ঘোষণার মাধ্যমে মাত্র ১৭২ দিনের মধ্যে শেষ হলো আলোচিত এ মামলার বিচার কার্যক্রম। আসামিরা সবাই কারাগারে রয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ কে এম নাছিমুল আক্তার। তাকে সহায়তা করেন মানবাধিকার কমিশনের আইনজীবী এস আকবর খান, মানবাধিকারকর্মী এম এ করিম মিয়া ও মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার টাঙ্গাইল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আজাদ। আসামিপক্ষে ছিলেন শামীম চৌধুরী দয়াল ও দেলোয়ার হোসেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে রূপাকে চলন্ত বাসে ধর্ষণ করে পরিবহন শ্রমিকরা। বাসেই তাকে হত্যার পর মধুপুর উপজেলায় পঁচিশ মাইল এলাকায় বনের মধ্যে রূপার মরদেহ ফেলে রেখে যায়।

এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ওই রাতেই অজ্ঞাত নারী হিসেবে তার মরদেহ উদ্ধার করে। পরদিন ময়নাতদন্ত শেষে রূপার মরদেহ বেওয়ারিশ হিসেবে টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় গোরস্থানে দাফন করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মধুপুর থানায় হত্যা মামলা করে। পত্রিকায় প্রকাশিত ছবি দেখে রূপার ভাই হাফিজুর রহমান মধুপুর থানায় গিয়ে ছবির ভিত্তিতে তাকে শনাক্ত করেন।

গত ২৮ আগস্ট এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ময়মনসিংহ-বগুড়া সড়কের ছোঁয়া পরিবহনের হেলপার শামীম (২৬), আকরাম (৩৫) ও জাহাঙ্গীর (১৯) এবং চালক হাবিবুর (৪৫) ও সুপারভাইজার সফর আলীকে (৫৫) গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদেরকে আদালতে হাজির করা হলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

 

রূপা ধর্ষণ ও হত্যা : ৪ জনের ফাঁসির আদেশ
                                  

টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় চারজনের বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। এসময় একজনের ৭ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

সোমবার বেলা সোয়া ১১টায় এ রায় ঘোষণা করেন টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া। এ সময় আদালতে মামলার আসামিরা উপস্থিত ছিলেন।

 ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, বাসটির হেলপার শামীম (২৬), আকরাম (৩৫) ও জাহাঙ্গীর (১৯) এবং চালক হাবিবুর (৪৫)। এছাড়া সুপারভাইজার সফর আলীকে (৫৫) সাত বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এর আগে ৫ ফেব্রুয়ারি আদালতে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার এ দিন ধার্য করেন বিচারক।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন, বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট নাছিমুল আক্তার নাসিম। তার সহায়তায় রয়েছেন মানবাধিকার কমিশনের আইনজীবী এস আকবর খান, মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট এমএ করিম মিয়া ও মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার টাঙ্গাইল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান আজাদ।

এদিকে আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট শামীম চৌধুরী দয়াল ও ঢাকা থেকে আসেন অ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেন।

 

টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি একেএম নাছিমুল আখতার নাসিম জানান, ঘটনার ১৭৩ দিন আর মামলার ১৭১ দিনের মাথায় আলোচিত এ মামলার রায় হলো।

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে রূপাকে চলন্ত বাসে ধর্ষণ করে পরিবহন শ্রমিকরা। বাসেই তাকে হত্যার পর মধুপুর উপজেলায় পঁচিশ মাইল এলাকায় বনের মধ্যে রূপার মরদেহ ফেলে রেখে যায়।

এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ওই রাতেই অজ্ঞাত নারী হিসেবে তার মরদেহ উদ্ধার করে। পরদিন ময়নাতদন্ত শেষে রূপার মরদেহ বেওয়ারিশ হিসেবে টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় গোরস্থানে দাফন করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মধুপুর থানায় হত্যা মামলা করে। পত্রিকায় প্রকাশিত ছবি দেখে রূপার ভাই হাফিজুর রহমান মধুপুর থানায় গিয়ে ছবির ভিত্তিতে তাকে শনাক্ত করেন।

গত ২৮ আগস্ট এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ময়মনসিংহ-বগুড়া সড়কের ছোঁয়া পরিবহনের হেলপার শামীম (২৬), আকরাম (৩৫) ও জাহাঙ্গীর (১৯) এবং চালক হাবিবুর (৪৫) ও সুপারভাইজার সফর আলীকে (৫৫) গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদেরকে আদালতে হাজির করা হলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। এ মামলায় বাদীসহ ২৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য-প্রমাণে মামলা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ।

 

পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ : কোন জেলায় কবে পরীক্ষা
                                  

বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে কনস্টেবল পদে ৮৫০০ জন পুরুষ ও ১৫০০ জন নারীসহ সর্বমোট ১০ হাজার প্রার্থী বাছাই করা হবে। এ বিষয়ে গত মার্চে সার্কুলার জারি করেছে বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স। শারীরিক, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা হবে প্রত্যেকের নিজ নিজ জেলায়। আগ্রহী প্রার্থীদের শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষাসহ নির্দিষ্ট তারিখে সকাল ৯টার আগেই নিজ জেলার পুলিশ লাইন্সে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ উপস্থিত থাকার জন্য আহ্বান জানিয়েছে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স।

আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি শারীরিক ও ২৪ ফেব্রুয়ারি লিখিত পরীক্ষা যে যে জেলায় : মাদারীপুর, রাজবাড়ী, চাঁদপুর, সাতক্ষীরা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, নাটোর, নীলফামারী, পিরোজপুর এবং বরগুনা মোট ১০টি জেলা।

আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি শারীরিক ও ২৬ ফেব্রুয়ারি লিখিত পরীক্ষা যে যে জেলায় : মুন্সিগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, শরীয়তপুর, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান, রাঙ্গামাটি, ফেনী, মাগুরা, মেহেরপুর, জয়পুরহাট এবং ঝালকাঠি মোট ১১টি জেলা।

আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি শারীরিক ও ২৭ ফেব্রুয়ারি লিখিত পরীক্ষা যে যে জেলায় : গাজীপুর, নরসিংদী, কক্সবাজার, লক্ষ্মীপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, লালমনিরহাট, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, ঝিনাইদহ, ভোলা এবং মৌলভীবাজার মোট ১১ টি জেলা।

আগামী ০৩ মার্চ শারীরিক ও ০৫ মার্চ লিখিত পরীক্ষা যে যে জেলায় : মানিকগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, খুলনা, বাগেরহাট, নড়াইল, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, পটুয়াখালী, সিলেট এবং সুনামগঞ্জ মোট ১০ টি জেলা।

আগামী ০৪ মার্চ শারীরিক ও ০৬ মার্চ লিখিত পরীক্ষা যে যে জেলায় : ঢাকা, গোপালগঞ্জ, টাংগাইল, ময়মনসিংহ, জামালপুর, চট্রগ্রাম, কুমিল্লা, কুষ্টিয়া, রাজশাহী, বরিশাল এবং হবিগঞ্জ মোট ১১টি জেলা।

আগামী ০৬ মার্চ শারীরিক ও ০৮ মার্চ লিখিত পরীক্ষা যে যে জেলায় : ফরিদপুর, নেত্রকোনা, শেরপুর, বি-বাড়ীয়া, নোয়াখালী, বগুড়া, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, নওগাঁ, রংপুর এবং দিনাজপুর মোট ১১টি জেলা।

 

প্রশ্নফাঁস রোধে মোবাইলে ইন্টারনেটের গতি কমছে
                                  

চলমান এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস রোধে উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এ জন্য পরীক্ষার দিন সকালে সব মোবাইল ফোন অপারেটরকে এক ঘণ্টা করে ইন্টারনেটের গতি কমানোর নির্দেশ দিয়েছে তারা।

বিটিআরসি জানিয়েছে আজ (রোববার) সব মোবাইল অপারেটরকে চিঠির মাধ্যমে এ সংক্রান্ত নির্দেশ দেয়া হয়েছে। চলমান এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস ঠেকাতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ আদেশের কারণে আগামীকাল সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত সারাদেশে ইন্টারনেটের গতি কম থাকবে।

উল্লেখ্য, গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে সারা দেশে এবং বিদেশের কয়েকটি কেন্দ্রে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এতে ২০ লাখ ৩১ হাজার ৮৯৯ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন। কিন্তু বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন ছড়িয়ে পড়ছে আর শিক্ষার্থীরা খুব সহজেই তা মোবাইলের মাধ্যমে পেয়ে যাচ্ছেন।

এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত বাংলা (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র), ইংরেজি (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) এবং ধর্ম বিষয়ের পর শনিবার (১০ ফেব্রয়ারি) গণিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্রও ফাঁস হয়।

এদিকে এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে গতকাল রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ১৪ জনকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

 

ক্রেডিট কার্ড চোর ধরতে সহায়তা চেয়ে পুলিশের বিজ্ঞপ্তি
                                  

ক্রেডিট কার্ড চুরি করে রাজধানীর উত্তরার একটি দোকান থেকে প্রায় দেড় লাখ টাকার মালামাল হাতিয়ে নেয়ার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক নারীকে খুঁজছে পুলিশ। তাকে ধরিয়ে দিতে সহযোগিতা চেয়ে শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘ডিএমপি নিউজ’-এ ছবিসহ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়, গত ২৬ জানুয়ারি উত্তরা পশ্চিম থানায় অভিযোগ আসে নিয়ে আসেন এক নারী। তার বাসা গুলশানে। তিনি অভিযোগ করেন, ঘটনার দিন দুপুর সোয়া ২টার দিকে তিনি উত্তরার ৭ নং সেক্টরে অবস্থিত মাসকট প্লাজার কুপারস ফাস্ট ফুডের দোকানে হালকা খাবার কেনার জন্য যান। খাবার কেনার পর বিল পরিশোধ করতে গিয়ে দেখেন যে তার ওয়ালেটটি নেই। বুঝতে পারেন খোয়া গেছে ওয়ালেট। ওয়ালেটটিতে তার স্ট্যান্ডার্ড চ্যাটার্ড ব্যাংক এর ডেবিট কার্ড, লঙ্কা বাংলা মাস্টার কার্ড, স্মার্ট কার্ড (জাতীয় পরিচয়পত্র), ড্রাইভিং লাইসেন্স, অস্ট্রেলিয়ান ড্রাইভিং লাইসেন্স, ঢাকা ব্যাংক এর ক্রেডিট কার্ড, ঢাকা ব্যাংক এর ডেভিট কার্ড এবং তার ছেলের জাতীয় পরিচয়পত্র ছিল।

 

এরপর ঘটনার দিন বেলা সোয়া ৩টার দিকে তার মোবাইলে মেসেজ আসে তার ব্যবহৃত স্ট্যান্ডার্ড চ্যাটার্ড ব্যাংক এর ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে জমজম টাওয়ারের ওয়েস্ট ফিল্ড দোকান থেকে সর্বমোট ১ লাখ ১২ হাজার টাকার স্যুট, প্যান্ট, টি-শার্ট ও সু ক্রয় করে। একই দিন বিকাল সাড়ে ৫টায় আরেকটি মেসেজ আসে উত্তরার ডেলাইট ফ্যাশন হতে তার লঙ্কা-বাংলার মাস্টার কার্ড ব্যবহার করে ৩৫ হাজার চারশত টাকার জিনিসপত্র ক্রয় করা হয়েছে। তখনি দ্রুত তার হারানো সকল কার্ডের বিষয়ে ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা করে সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেন।

তার অভিযোগের ভিত্তিতে এ সংক্রান্তে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা রুজু হয়। মামলাটি তদন্ত শুরু করে পুলিশ। মামলাটি তদন্তকালে সংগৃহীত সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে একজন নারীকে সনাক্ত করেছে পুলিশ। ওই নারী ওয়ালেটটি চুরি করে উল্লেখিত শপিং মল থেকে ক্রেডিড কার্ড ব্যবহার করে সর্বমোট এক লক্ষ সাতচল্লিশ হাজার চারশত টাকার মালামাল ক্রয় করেছে বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ।

কিন্তু তার নাম-ঠিকানা ও প্রকৃত পরিচয় না জানার কারণে তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের জন্য উক্ত প্রদর্শিত ব্যক্তির সন্ধান জানা একান্ত প্রয়োজন।

কেউ ওই নারীর সন্ধান জেনে থাকলে উত্তরা পশ্চিম থানায় (ওসি ০১৭৬৯০৫৮০৬৫) যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

 


   Page 1 of 4
     বিশেষ সংবাদ
শিমুল বিশ্বাস তৃতীয় দফায় রিমান্ডে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
দাড় কাউয়া মুক্ত আওয়ামী লীগ চাই, বিলবোর্ডের ছবি ভাইরাল
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
প্রশ্নফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে কমিটি
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
নির্বাচনে খালেদার প্রভাব পড়বে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
ঢাকা ভেঙে প্রস্তাবিত নতুন বিভাগের নাম হবে ‌পদ্মা :ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের রিসিপশন ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
খালেদা জিয়ার বিষয়ে ইসির কিছুই করার নেই:
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
খালেদার রায় রাজনৈতিক নয় বলেই জনগণ মনে করে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
বঙ্গবন্ধুকে এঁকে তাক লাগিয়ে দিলেন ইলোরা
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
এবার পদার্থবিজ্ঞানের প্রশ্নও ফাঁস
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মোবাইল ফোন পেলেই আটক
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
যেই বাসে রূপাকে ধর্ষণ সেটি পাচ্ছে পরিবার
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
রূপা ধর্ষণ ও হত্যা : ৪ জনের ফাঁসির আদেশ
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ : কোন জেলায় কবে পরীক্ষা
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
প্রশ্নফাঁস রোধে মোবাইলে ইন্টারনেটের গতি কমছে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
ক্রেডিট কার্ড চোর ধরতে সহায়তা চেয়ে পুলিশের বিজ্ঞপ্তি
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
সাগর-রুনি হত্যা : নতুন কিছু জানাতে পারছে না র‌্যাব
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
দৈনিক ইনকিলাবের সম্পাদক এম.এম.এ বাহাউদ্দিনের মাতার ইন্তেকালে জাগপা ছাত্রলীগ এর শোক
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
খালেদার সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে ৫ আইনজীবী
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
আজও গণিত পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
‘আমি শিক্ষামন্ত্রীর ভায়রা, অভিযোগ করে লাভ হবে না’
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
সেনবাগে যুবলীগ নেতার ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রসহ চার দেশের সতর্কতা জারি
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত সহকারী শিমুল বিশ্বাস আটক
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
রমনা-মগবাজারে বিএনপি-আ.লীগ সংঘর্ষ চলছে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
কাকরাইল মোড় রণক্ষেত্র, বোমা বিস্ফোরণ
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
মগবাজারে ইটপাটকেল ছোড়াছুড়ি
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
আদালতে সাংবাদিক-আইনজীবী প্রবেশে নিয়ন্ত্রণ
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
বাংলাদেশে অস্থিরতা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা: ভারতীয় গণমাধ্যম
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
গাড়ি কম, আতঙ্ক বেশি, গণপরিবহন সংকট চরমে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
‘গণগ্রেফতার নয়, ভিডিও ফুটেজ দেখে গ্রেফতার’
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
নারায়ণগঞ্জের যুগ্ম জেলা জজকে তলব
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
খালেদা জিয়ার রায় : পরীক্ষা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ২০ লাখ শিক্ষার্থী
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
প্রশ্ন ফাঁস : মানিকগঞ্জে দুই শিক্ষক রিমান্ডে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
আজকের প্রশ্নও ফাঁস : আটক ১
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী: শিক্ষামন্ত্রীকে সরান, কালো আইন করবেন না
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
প্রশ্নফাঁস : শিক্ষামন্ত্রীকে বরখাস্তের দাবি সংসদে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
টাঙ্গাইলে রুপা হত্যার রায় ১২ ফেব্রুয়ারি
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
দাবি না মানলে সারাদেশে গ্রামীণফোন অফিসে তালা ঝুলবে
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
শ্বশুরের সঙ্গে প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে কথা বলা সময়ের অপচয়
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
বিএনপির ফাঁদে পা দেবেন না : কাদের
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
বিএনপির ফাঁদে পা দেবেন না : কাদের
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
রাতে অস্ত্রোপচার, দিনে পরীক্ষা দিলেন মা
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
পেনশনভোগীদের জন্য সুসংবাদ
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
৮ ফেব্রুয়ারি কী হবে ?
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
পদত্যাগ করলেন বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞা
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
ধরা পড়লেন মেডিনোভার গফুর
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
কার গুলিতে প্রাণ গেল সেটা জানতেই এক বছর
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
টাকার অভাবে চিকিৎসা বন্ধ সেই খাদিজার
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......
ইকো পাঠশালাকে বিআইএস এর শুভেচ্ছা
............ ...... ....... ....... ............................. .......................... ... .... ......