শেয়ার করুন
Share Button
   রাজনীতি
  নিরপেক্ষ ইসির দাবিতে সমাবেশ করবেন খালেদা জিয়া
  3, October, 2016, 2:16:37:PM

বিএনপিপি নিউজ ডেস্ক:

স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের দাবিতে শিগগিরই মাঠে নামবে বিএনপি। নতুন জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটির হাইকমান্ড। দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া নিজেই এই ইস্যুতে আন্দোলনের মাঠ তৈরি করবেন। আসছে শীতে তিনি ঢাকার বাইরে বেশ কয়েকটি জনসমাবেশ করবেন বলে জানা গেছে।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন ইস্যুতে শিগগিরই দলের অবস্থান সুস্পষ্ট করবে বিএনপি। সার্চ কমিটির ওপর দলটির এখন আর কোনো আস্থা নেই। যুক্তি হিসেবে বিএনপি নেতারা বলছেন, ২০১২ সালে সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠিত কাজী রকীবউদ্দিন আহমদের নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশনের অধীনে একটি নির্বাচনও সুষ্ঠু হয়নি, বরং তা ইতিহাসে ‘কলঙ্কজনক’ অধ্যায় হিসেবেই বিবেচিত হবে। রাজনৈতিক অঙ্গনের বাইরেও প্রতিনিধিত্বশীল প্রতিটি স্তর থেকে এই ইসির প্রতি অনাস্থা দেয়া হয়েছে।
পাঁচ সদস্যের নির্বাচন কমিশন নিয়োগে আগের বারের মতো ‘সার্চ কমিটি’র মাধ্যমে নতুন ইসি আসছে বলে সরকারের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠিত কাজী রকীবউদ্দিন আহমদের নেতৃত্বাধীন বর্তমান কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ফেব্রুয়ারিতে। সংবিধানের আলোকে রাষ্ট্রপতি সব সময় সিইসি ও ইসি নিয়োগ দিলেও ২০১২ সালে সর্বশেষ কমিশন হয় সার্চ কমিটির মাধ্যমে। ওই বছর ২৪ জানুয়ারি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে নামের সুপারিশ তৈরি করতে চার সদস্যের সার্চ (অনুসন্ধান) কমিটি গঠন করেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি। প্রধান বিচারপতি মনোনীত আপিল বিভাগের একজন বিচারককে সভাপতি করে গঠিত কমিটিতে সদস্য হন হাইকোর্ট বিভাগের একজন বিচারক, মহাহিসাব নিরীক ও নিয়ন্ত্রক এবং সরকারি কর্মকমিশন চেয়ারম্যান। ইসি গঠন নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে সংলাপও করা হয়। সংলাপে বেশির ভাগ দলই সংবিধান অনুসারে সিইসি ও ইসি নিয়োগে আলাদা আইন করা বা অনুসন্ধান কমিটির পে মত দেয়। সার্চ কমিটির আহ্বানে আওয়ামী লীগসহ কয়েকটি দল নতুন কমিশনের জন্য তখন তাদের পছন্দের ব্যক্তির নামের তালিকা দিলেও বিএনপি দেয়নি।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর রায় বলেছেন, সার্চ কমিটি যিনি গঠন করবেন, তিনিও আওয়ামী লীগের, যাকে দিয়ে গঠন করবেন, তিনিও আওয়ামী লীগের, যারা সার্চ কমিটি থেকে নির্বাচন কমিশন গঠন করবেন, তারাও আওয়ামী লীগের। তারা কোনো নিরপে ও সাহসী ব্যক্তিকে নির্বাচন কমিশনার করবেন না। তিনি সার্চ কমিটির বদলে একটি বিকল্প প্রস্তাব এরই মধ্যে দিয়েছেন। তিনি বলেন, এর আগে যেসব রাজনৈতিক দল সংসদে ছিল তাদের এবং যারা সরকারে ছিল তাদের মতামত নিয়ে একটি তালিকা থেকে যদি নির্বাচন কমিশন ঘোষণা করা হয়, সে আস্থা আসতে পারে।
জানা গেছে, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন ইস্যুটি বিএনপির কাছে এখন সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বর্তমান কমিশনের মেয়াদ আছে আর মাত্র পাঁচ মাস। পরবর্তী নির্বাচন নতুন কমিশনের অধীনই হবে। বিএনপি কোনোভাবেই একতরফা নির্বাচন কমিশন গঠন করতে দেবে না। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি গ্রহণযোগ্য কমিশন গঠনে সরকারকে বাধ্য করতে সব রকম চেষ্টা চালাবে তারা। নির্বাচন কমিশন গঠনের বিষয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দেয়া হবে। এর পরও ক্ষমতাসীনেরা যদি সবার মতামত উপেক্ষা করে বর্তমান কমিশনের মতো ফের ‘পক্ষপাতমূলক নির্বাচন কমিশন’ গঠন করে তবে জনগণকে সাথে নিয়ে বিএনপি রাজপথে নামবে।
২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বর্জনকারী মাঠের বিরোধী দল বিএনপি আগামী নির্বাচন নিয়ে ‘কট্টর’ কোনো অবস্থানে নেই। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি পূরণ না হওয়ায় ওই নির্বাচন বয়কট করে আন্দোলনে নেমেছিল বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটসহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দল। জানা গেছে, বিএনপি পরবর্তী নির্বাচন নিয়ে মূলত আলোচনার পক্ষপাতী। এ ক্ষেত্রে কোনো পূর্বশর্তও নেই তাদের। আলোচনার টেবিলে বিএনপি যে দু’টি বিষয় ফোকাস করতে চায় তা হচ্ছে, নির্বাচনকালীন সরকার কাঠামো এবং শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন। সমঝোতার ভিত্তিতে একটি শক্তিশালী ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন নিশ্চিত হলে বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনে অংশ নিতে আপত্তি নেই দলটির।
বিএনপির সিনিয়র এক নেতা জানান, বিএনপি সব ধরনের পরিকল্পনা করছে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে ঘিরে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে সরকারকে বাধ্য করার ওপর। এ লক্ষ্যে জনমত সৃষ্টি করতে আন্দোলনের মাঠে নামার কথা ভাবা হচ্ছে। খালেদা জিয়া নিজেই মাঠে থেকে এ ক্ষেত্রে আন্দোলনের নেতৃত্ব দেবেন। এর অংশ হিসেবে নভেম্বরের শেষে অথবা ডিসেম্বরে দেশের কয়েকটি বিভাগে জনসভাও করতে পারেন তিনি।
পরবর্তী আন্দোলনের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে সরকারকে হটাতে হবে। শিগগির দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মাঠে নামবেন। দেশব্যাপী তিনি গণসংযোগ করবেন। আর গণসংযোগের মধ্য দিয়েই এই ফ্যাসিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন শুরু হবে।
নির্বাচন কমিশন ইস্যুতে মাঠে নামার অন্য উদ্দেশ্যও রয়েছে দলটির। হাইকমান্ড মনে করছে, নির্বাচনকেন্দ্রিক বিভিন্ন দাবি পূরণে শেষ পর্যন্ত তাদের আন্দোলনের পথও বেছে নিতে হতে পারে। সে ক্ষেত্রে জনমত গঠন ও নেতাকর্মীদের উদ্দীপ্ত করার দিকটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। খালেদা জিয়ার সমাবেশ আয়োজনের মধ্য দিয়েই এটি সম্ভব হতে পারে। এ ছাড়া এর মধ্য দিয়ে সংগঠনের সকল পর্যায়ের কমিটি ঢেলে সাজানোর যে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, তা আরো গতি লাভ করবে। এক নেতার এক পদ নীতি কার্যকর করার মাধ্যমে তৃণমূল নেতাদের সামনের সারিতে নিয়ে আসা হবে। মেয়াদোত্তীর্ণ সব অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনকেও নতুন নেতৃত্ব দিয়ে সাজানো হবে। জানা গেছে, বর্তমানে যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কমিটি ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছে। ঢাকা মহানগর বিএনপিকেও দুই ভাগ করে কমিটি দেয়ার সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত হয়ে আছে।
জানা গেছে, দল পুনর্গঠন ও আন্দোলনের জন্য মাঠ প্রস্তুত করা এ দু’টি বিষয়ে প্যাকেজ প্রোগ্রাম নিয়ে সামনে এগোচ্ছে বিএনপি। এ ক্ষেত্রে নতুন কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পাওয়ার পরও যারা ক্ষুব্ধ তাদের ব্যাপারে যতটা সম্ভব ছাড় দিয়ে নতুন পদ দিয়ে সন্তুষ্ট করার কথাও ভাবা হচ্ছে। নতুন কমিটির বিভিন্ন স্তরে পদ পাওয়া কমপক্ষে এক শ’ নেতা প্রকাশ্যে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাতে না পারলেও ভেতরে ভেতরে ক্ষুব্ধ এমন তথ্য রয়েছে হাইকমান্ডের কাছে।



:        
   আপনার মতামত দিন
     রাজনীতি
সফলদের অনুকরণীয় ১০ অভ্যাস
................................................................
১০ হাজার টাকায় নোকিয়ার ফোরজি ফোন, চার্জ থাকবে অন্তত ২ দিন
................................................................
নারী শরীর সম্পর্কে যে কয়টি ভুল ধারণা পোষণ করেন পুরুষরা
................................................................
আইফোন টেনে দুটি ব্যাটারি
................................................................
যেভাবে ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করবেন
................................................................
অফিসে কেন ফেসবুক চালাবেন না?
................................................................
মেয়ের ভুলে চাকরি হারালেন অ্যাপল ইঞ্জিনিয়ার
................................................................
বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর বিচ হোটেল
................................................................
বিশ্বের সব থেকে আকর্ষণীয় শিক্ষিকা সে!
................................................................
ওজন কমাবে তোয়ালে!
................................................................
নিজেকে ভালো রাখুন, ভালো থাকুন
................................................................
চুল পড়লে কী করবেন?
................................................................
মমতাজ সুন্দরীতমা
................................................................
কখন কতটা পানি পান করবেন?
................................................................
জীবনের কঠিন সময়গুলো পার করবেন যেভাবে
................................................................
জিরার যত উপকারী ব্যবহার
................................................................
সম্পর্ক করুন `বই পড়ুয়া`নারীদের সঙ্গে
................................................................
লিখতে হবে না, চিন্তা করলেই আপডেট হবে ফেসবুকে!
................................................................
গরমে আরাম
................................................................
১০ মিনিট ঘরে তেজপাতা পোড়ালে কী হয়?
................................................................
প্লাস্টিকের ডিম চিনবেন যেভাবে
................................................................
নীলাদ্রির নীল জলে
................................................................
বন্ধু নাকি প্রেমিক, কীভাবে বুঝবেন?
................................................................
গরমে সারাদিন সতেজ থাকার উপায়
................................................................
‘ভালোবাসা আইছে তাই ৩ টাকার ফুল ২০ টাকা’
................................................................
ফুটবল ব্যালেন্স তার নেশা
................................................................
৩০ দিন টানা আদা খেলে কী হয়?
................................................................
রসুনের দারুণ স্বাস্থ্য উপকারিতা
................................................................
শেষ পর্যায়ে এইডসের প্রতিষেধক তৈরির কাজ
................................................................
ওষুধি গাছের গ্রাম নাটোরের লক্ষ্মীপুর
................................................................
হঠাৎ কানব্যথা?
................................................................
হার্ট বার্ন হলে যেসব ওষুধ সেবন ক্ষতিকর
................................................................
ঘাড়ে ব্যথার কারণ ও প্রতিকার
................................................................
কি খাওয়াচ্ছেন আপনার বাচ্চাকে !
................................................................
তরুণদের জন্য সর্বনাশ বয়ে আনে যে ৮টি বদভ্যাস
................................................................
ত্বকের যত্নে টমেটোর পাঁচটি ব্যবহার
................................................................
স্তন ক্যান্সার শনাক্তে আরও সঠিক পরীক্ষা
................................................................
৬০০ রোগের মহৌষধ হলুদ!
................................................................
বাড়িতে ব্যায়াম: গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়
................................................................
গর্ভবতী মায়ের কোমর ব্যথার কারণ ও প্রতিকার
................................................................