শেয়ার করুন
Share Button
   বিশেষ সংবাদ
  কর ফাঁকির অভিযোগে ইউনাইটেড হাসপাতালের এমডির বিরুদ্ধে মামলা
  11, January, 2018, 8:29:37:PM

কর ফাঁকির অভিযোগে ইউনাইটেড হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) দুই জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলশান থানায় দুদকের উপ-পরিচালক মাহবুবুল আলম বাদি হয়ে মামলাটি করেন। দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) প্রনব কুমার ভট্টাচায্য মামলার বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

মামলার আসামিরা হলেন, ইউনাইটেড হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রহমান খান ও অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কমিশনার রহিমা বেগম।

প্রনব কুমার ভট্টাচায্য বলেন, ইউনাইটেড হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার পর থেকে ২০১১ পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশনের হোল্ডিং ট্যাক্স বাবদ ২১ কোটি ৪৪ লাখ ২৬ হাজার ৯৯৩ টাকা পরিশোধ না করে আত্মসাৎ করেছে।

মামলার এজাহারে জানা যায়, ২০০৬ সালে রাজধানীর গুলশান-২ আবাসিক এলাকার ৭১ নম্বর রোডের ১৫ নম্বর বাড়িতে বেইজমেন্টসহ একটি আটতলা ভবনে ‘কন্টিনেন্টাল হাসপাতাল’নামে কার্যক্রম শুরু হয়। ২০০৭ সালে হাসপাতালটির মালিকানা ও নাম পরিবর্তন হয়ে ‘ইউনাইটেড হাসপাতাল লিমিটেড’নামে কার্যক্রম শুরু করে। যদিও ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের তালিকায় আগের নামই বহাল রয়েছে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

২০০৬ সাল থেকে হাসপাতালটির ত্রৈমাসিক হোল্ডিং ট্যাক্স ৮৮ লাখ ১৫ হাজার ৮৯০ টাকা নির্ধারণ করে ২০০৭ সালের ২৬ অগাস্ট নোটিশ দেয় ঢাকা সিটি কর্পোরেশন। ওই কর আরোপের বিরুদ্ধে ইউনাইটেড হাসপাতাল সিটি কর্পোরেশনের অ্যাসেসমেন্ট রিভিউ বোর্ড (এআরবি) বরাবর আবেদন করে।

চার সদস্যের ওই বোর্ডে তৎকালীন সিটি কর্পোরেশন কমিশনার এম এ কাইয়ুম (ওয়ার্ড নং-২১) ছিলেন চেয়ারম্যান। বাকি সদস্যরা ছিলেন কমিশনার রহিমা বেগম, (সংরক্ষিত আসন-২৭), প্রকৌশলী কাজী জহিরুল আজম ও অ্যাভোকেট মালেক মোল্লা।

এআরবি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও অপর দুইজন সদস্যের অনুপস্থিতিতে রহিমা বেগম এককভাবে ২০০৯ সালে ত্রৈমাসিক কর কমিয়ে ৭৪ লাখ ৯৩ হাজার ৫৫০ পুনঃনির্ধারণ করেন।

এতে ইউনাইটেড হাসপাতাল লিমিটেডের ত্রৈমাসিক কর ১৩ লাখ ২২ হাজার ৩৪০ টাকা কমে যায়। তা সত্ত্বেও ইউনাইটেড হাসপাতাল পরবর্তিতে কর পরিশোধ করেনি। করের পরিমাণ না কমালে ২০১১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশনের পাওনা হতো ২১ কোটি ৪৪ লাখ ২৬ হাজার ৯৯৩ টাকা। কিন্তু কমানোর কারণে পাওনা দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ২২ লাখ ৬৩ হাজার ৯৫২ টাকা।

সাবেক কমিশনার রহিমা বেগম ও ইউনাইটেড হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রহমান খান পরস্পর যোগসাজশে অপরাধমূলক বিশ্বাস ভঙের মাধ্যমে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনকে ২১ কোটি ৪৪ লাখ ২৬ হাজার ৯৯৩ টাকা পরিশোধ না করে দণ্ডনীয় অপরাধ করেছেন।

 



:        
   আপনার মতামত দিন
     বিশেষ সংবাদ
মেলায় পণ্য কিনে উপহার পেয়ে খুশি নাজমুল হুদা
................................................................
ঢাকায় প্রবেশে উচ্চ হারে ফি নেয়ার প্রস্তাব
................................................................
আমানত ফেরতে ফারমার্সের ব্যর্থতায় টিআইবির উদ্বেগ
................................................................
আগামী সপ্তাহে ১৫ কোম্পানির এজিএম
................................................................
বিদায়ী বছরে এসে নড়বড়ে ব্যাংক খাত
................................................................
ইসলাম, নারী এবং অন্যান্য প্রসঙ্গ "গোলাম মাওলা রনি"
................................................................
নুহ নবীর নৌকার খোঁজে
................................................................
আল্লাহর গজব নাজিল হয় যে কারনে
................................................................
পর্যটক টানছে থাইল্যান্ডের মসজিদগুলো
................................................................
সন্তান-সন্তুতির প্রতি রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর ভালোবাসা
................................................................