শেয়ার করুন
Share Button
   বিশেষ সংবাদ
  আবারো প্রমান করলেন ঠাকুরগাঁওয়ের ডিসি “জন সেবার জন্য প্রশাসন”
  1, January, 2018, 11:52:13:PM

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে এক প্রসূতি মা ও নবজাতককে নিয়ে ছুটাছোটি করছে ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল। একটাই কথা জীবন বাঁচাতে হবে তাদের । অন্তত শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।

 

আজ নতুন বছরের প্রথম দিন। রবিবার রাতে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল মান্নান জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়ালকে ফোন করলেন। জেলা প্রশাসক তখন অফিসের দৈনন্দিন কাজে ভীষণ ব্যস্ত।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফোনে জেলা প্রশাসককে যে তথ্য দিলেন তার সারমর্ম মোটামুটি এরকম: বালিয়াডাঙ্গী থেকে লাহিড়ী হাট যেতে জাউনিয়া ব্রীজ-এর পশ্চিম পার্শ্বের খোলা মাঠে একজন নাম না জানা মহিলা দু’টি সন্তান প্রসব করেছেন। একটি শিশু ঘটনাস্থলেই মারা যায়। অপর শিশুটি বেঁচে যায়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এক সংবাদকমীর মাধ্যমে খবর পেয়েই তাৎক্ষণিকভাবে মা ও শিশুটিকে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার ব্যবস্থা করলেন। চিকিৎসক বললেন যে এদের দ্রুত ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করতে হবে।

 

এ পর্যন্ত শুনেই জেলা প্রশাসক, ঠাকুরগাঁও ইউএনওকে বললেন তুমি এক্ষুণি তাদেরকে ঠাকুরগাঁও পাঠানোর ব্যবস্থা করো। বাকি সব আমি দেখছি। জেলা প্রশাসক। প্রথমেই ফোন করলেন সিভিল সার্জনকে। বিস্তারিত জানিয়ে চলে গেলেন ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে।

 

সেখানে শিশু বিশেষজ্ঞ ড. শাহজাহান নেওয়াজ এর সাথে অপেক্ষা করতে থাকলেন মৃত্যুপথযাত্রী মা ও সদ্য ভূমিষ্ঠ শিশুটির জন্য। দ্রুততার সাথেই তারা পৌছে গেল। রুগ্নপ্রায় মা ও শিশুটির জীবন বাঁচানোর জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করার অনুরোধ করলেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে। ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের শ্রদ্ধেয় সকল চিকিৎসক ও অন্যান্য স্টাফরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিলেন। রুগ্ন মা ও মাত্র ১ কেজি ৪০০ গ্রাম ওজনের সদ্য ভুমিষ্ঠ শিশুটির জীবন বাঁচাতে অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন ড. শাহজাহান নেওয়াজ। জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল নিজে ট্রলি ঠেলছেন। তাঁর এক কথা-আমরা শেষ পর্যন্ত দেখতে চাই। তাঁর উদ্যোগে চিকিৎসার সকল ঔষধ পত্রের ব্যবস্থা করা হলো।

 

এক সময়ে লোকজনের ভীর থেকে বেড়িয়ে একা এক জায়গায় দাঁড়ালেন তিনি। দূর থেকে মনে হলো তাঁর চোখের কোনে কিছু চকচক করছে। অশ্রুকণা হবে হয়তো। হাসপাতালের বারান্দায় পায়চারী করছিলেন একা একা। ঠাকুরগাঁও জেলায় ইতোমধ্যে মানবিক জেলা প্রশাসক হিসেবে খ্যাত আব্দুল আওয়াল।

 

হাসপাতালে দ্রুতবেগে যাবার আগে বিড়বিড় করে বলছিলেন-‘ঐ মা ও শিশুর পরিচয় জানার কোন আগ্রহ আমার নেই। তাদের সুস্থতার জন্য আজ আমি আমার সামর্থের সবটুকু দেবো।

“মানুষ মানুষের জন্য!জীবন জীবনের জন্য!! জনসেবার জন্য প্রশাসন!এভাবে একটি বাস্তব উপলদ্বি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জহিরুল ইসলাম।

 

ঠাকুরগাঁও জেলার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা: শাহাজাহান নেওয়াজ বলেন, দ্রুত জেলা প্রশাসক স্যার নবজাতক ও মাকে হাসপাতালে ভর্তি না করলে বাচ্চাটিকে বাঁচানো কঠিন হয়ে পড়তো। প্রসূতি মায়ের অবস্থা অনেকাংশে ভাল ও নবজাতকটি নিরব পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে।

 

পরে জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়ালের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার নির্জন এলাকায় এক প্রসূতি মায়ের দুটি সন্তান প্রসব হয়। এ সময় একটি সন্তান মারা যায়। স্থানীয় এক সংবাদকর্মী ও উপজেলা নিবার্হী অফিসারের মাধ্যমে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে প্রসূতি মা ও সন্তানের অবস্থার অবনতি হলে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করা হয়। প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আশা করছি নবজাতক ও মাকে বাচাঁতে পারবো। এখনো প্রসূতি মায়ের পরচিয় পাওয়া যায়নি।

 



:        
   আপনার মতামত দিন
     বিশেষ সংবাদ
মেলায় পণ্য কিনে উপহার পেয়ে খুশি নাজমুল হুদা
................................................................
ঢাকায় প্রবেশে উচ্চ হারে ফি নেয়ার প্রস্তাব
................................................................
আমানত ফেরতে ফারমার্সের ব্যর্থতায় টিআইবির উদ্বেগ
................................................................
আগামী সপ্তাহে ১৫ কোম্পানির এজিএম
................................................................
বিদায়ী বছরে এসে নড়বড়ে ব্যাংক খাত
................................................................
ইসলাম, নারী এবং অন্যান্য প্রসঙ্গ "গোলাম মাওলা রনি"
................................................................
নুহ নবীর নৌকার খোঁজে
................................................................
আল্লাহর গজব নাজিল হয় যে কারনে
................................................................
পর্যটক টানছে থাইল্যান্ডের মসজিদগুলো
................................................................
সন্তান-সন্তুতির প্রতি রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর ভালোবাসা
................................................................