শীর্ষ খবর সর্বশেষ জনপ্রিয়
dhaka-times
dhaka-times-ad-space
dhaka-times-ad-space
dhaka-times-ad-space
dhaka-times-ad-space

‘৬ মাসে ১২২ দশমিক ৬৪ একর রেলভূমি অবৈধ দখলমুক্ত’

রেলপথ মন্ত্রী মো. মুজিবুল হক বলেছেন, গত বছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬ মাসে ৪৯ দশমিক ৬২ হেক্টর বা ১২২ দশমিক ৬৪ একর রেলভূমি অবৈধ দখলমুক্ত করে রেলওয়ের নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে সরকারি দলের সদস্য সামশুল হক চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানা গেছে। মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে রেলওয়ের জমির পরিমাণ ২৫ হাজার ০২৮ দশমিক ৬৬৯ হেক্টর বা ৬১ হাজার ৮৬০ দশমিক ২৮ একর (বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় অধিগ্রহণকৃত যেসব জমি ভূ-সম্পত্তি বিভাগে ন্যস্ত হয়নি তা ব্যতীত)। এর মধ্যে রেলওয়ের নিজ দখলে থাকা জমির পরিমাণ ৩ হাজার ০৫০ দশমিক ৩৫৭ হেক্টর বা ৫৬ হাজার ৯৭০ দশমিক ৭৩ একর।তিনি বলেন, রেলওয়ে ভূ-সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা নীতিমালা অনুযায়ী ৫ হাজার ৮৫৫ দশমিক ৫৮৭ হেক্টর বা ১৪ হাজার ৪৭৩ দশমিক ২৪ একর রেলভূমি একসনা লিজ প্রদান করা হয়েছে।

মুজিবুল হক বলেন, রেলওয়ের অবৈধ দখলীয় জমির পরিমাণ ১ হাজার ৪৭৫ দশমিক ৬৬৭ হেক্টর বা ৩ হাজার ৬৪৭ দশমিক ২২ একর। উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে অবৈধ দখলীয় রেলভূমি উদ্ধার বা অবৈধ দখল মুক্তকরণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

 

বিস্তারিত...

গাসিক নির্বাচনে মাঠে নেমেছে প্রার্থীরা

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসছে। ৩২৯ দশমিক ৯০ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এ বিশাল সিটি কর্পোরেশনের আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের মধ্যে নির্বাচনী প্রস্তুতি চলছে। বিশেষ করে বিএনপির চাইতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের তৎপরতা সবচেয়ে বেশি লক্ষণীয়।

আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে আছেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম। সম্প্রতি তিনি দলীয় সবুজ সংকেত পেয়েছেন বলে জানা গেছে। সবুজ সংকেত পেয়ে তিনি পুরোদমে নির্বাচনী কাজে মাঠে নেমে পড়েছেন। বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে গিয়ে তিনি প্রচারণা চালাচ্ছেন এবং দলীয় নেতাকর্মীদের নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ করছেন।

 

অপর দিকে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী গত নির্বাচনে পরাজিত প্রার্থী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান জানিয়েছেন, জাহাঙ্গীর আলমকে নৌকার পক্ষে কাজ করার জন্য বলা হয়েছে। দলীয় প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যথা সময়ে গাজীপুরের মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবেন। আর এ জন্য মনোনয়ন বোর্ড রয়েছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মনোনয়ন বোর্ডই প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন। তিনিও দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

এদিকে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী বর্তমান মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নানের নামই বেশি শোনা যাচ্ছে। প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন চাইবেন সাবেক এমপি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার।

২০১৩ সালের ৬ জুলাই অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বর্তমান মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খানকে পরাজিত করে প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন অধ্যাপক এমএ মান্নান।

মেয়র মান্নানের দায়িত্ব গ্রহণ এবং বারবার তাকে বরখাস্তের ঘটনা গাজীপুরে আলোচিত বিষয়। কারণ, মেয়র হয়ে তিনি যত দিন চেয়ারে বসেছেন, তার চেয়ে বেশি কাটিয়েছেন কারাগারে।

২০১৩ সালের ৬ জুলাই মেয়র নির্বাচিত হন মান্নান। কিন্তু নির্বাচিত হওয়ার চার বছরে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়েছেন মাত্র ১৮ মাস ১৯ দিন। জেলে কাটিয়েছেন ২২ মাস। এই সময়ে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে ৩০টি। বরখাস্ত হয়েছেন তিনবার। ৩০টি মামলা এবং বারবার বরখাস্তের ঘটনাকে ক্ষমতাসীনদের রাজনৈতিক প্রতিহিংসা হিসেবে দেখছেন অনেকে।

নগরবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নির্বাচিত মেয়র ২২ মাস কারাগারে থাকায় নতুন এ সিটি কর্পোরেশনে তেমন কোনো উন্নয়নমূলক কাজ হয়নি। নগরবাসী ভোট দিয়ে মেয়র নির্বাচিত করলেও তারা উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। দীর্ঘ সময় ভারপ্রাপ্ত মেয়র দিয়ে কাজ করানো হলেও প্রকৃত উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি মহানগরীতে।

নগরীর অপরিচ্ছন্নতা, তীব্র যানজট, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, ভাঙ্গাচুরা রাস্তাঘাট, পানি, গ্যাস, বিদ্যুতের সমস্যা তো রয়েছেই। নগরবাসী তাদের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির কোনো মিল খুঁজে পাচ্ছেন না। নূন্যতম নাগরিক সেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন মহানগরবাসী। আসন্ন নির্বাচনে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নাগরিকরা উন্নয়নের স্বার্থে যোগ্য প্রার্থীকে বেছে নেবেন এমন দাবি সাধারণ নাগরিকদের।

 

বিস্তারিত...
dhaka-times-ad-space

‘অপরাধ স্বীকার করেছি, আমি ভর্তি জালিয়াতির শিকার’

`আমি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নই। কিন্তু আমি ভর্তি জালিয়াতির শিকার। আমি আমার অপরাধ স্বীকার করে নিচ্ছি। সাহেদ ইসলাম ওরফে আল আমিন নামের এক শিক্ষার্থী ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে জালিয়াতির মাধ্যমে আমাকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করিয়ে দিয়েছেন।`এভাবেই জাবিতে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হওয়ার কথা স্বীকার করলেন এক ছাত্রী। জালিয়াতি ধরা পড়ে যাওয়ায় তিনি অনুতপ্ত হয়েছেন। ভবিষ্যতে তিনি আর কখনও এমন কাজ করবেন না এমন শর্তে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।এর আগে জাবিতে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হয়ে দীর্ঘ এক বছর ক্লাস করেন তিনি। বিষয়টি কেউ টের পায়নি। সম্প্রতি তিনি প্রথম বর্ষের ফরম পূরণ করতে গেলে শিক্ষকদের বিষয়টি সন্দেহ হয়। পরে তা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জানালে জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়ে।

জানা গেল মাত্র ২০ হাজার টাকার চুক্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বড় ভাই তাকে জাবিতে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তির সুযোগ করে দিয়েছেন। এর পর দিব্যি তিনি একবছর ক্লাস করে গেছেন। অবশেষে ধরা খেয়ে মুচলেকায় ছাড়া পেয়েছেন ওই ছাত্রী।জানা গেছে, ওই ছাত্রী শেরপুর জেলার নালিতা বাড়ির মোস্তাফা আহম্মেদের মেয়ে। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সি ইউনিটে (কলা ও মানবিক অনুষদ) মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভর্তি হয়েছেন তিনি। তিনি জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগে রোল নং ২২৩৮ বলে পরিচয় দিতেন। তবে সেটি ইনস্টিটিউট অব বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের এক শিক্ষার্থীর আইডি বলে জানা গেছে।প্রক্টর অফিসে স্বীকারোক্তিতে ত্বাকিয়া উল্লেখ করেন, আমি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নই। কিন্তু আমি ভর্তি জালিয়াতির শিকার। আমি আমার অপরাধ স্বীকার করে নিচ্ছি। সাহেদ ইসলাম ওরফে আল আমিন নামের এক শিক্ষার্থী ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে জালিয়াতির মাধ্যমে আমাকে ভর্তি করিয়ে দেন।

প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, বিভাগীয় সভাপতির অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা তদন্ত করে জালিয়াতির সত্যতা পেয়েছি। ত্বাকিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারেনি। তাকে শাস্তি না দিয়ে মুচলেকা নিয়ে অভিভাবকের কাছে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।এ বিষয়ে বিভাগীয় সভাপতি উজ্জ্বল কুমার মন্ডল বলেন, ক্লাসে ত্বাকিয়ার কোন সঠিক রোল নম্বর ছিল না। কিন্তু সে অনুশীলনী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। সর্বশেষ ১ম বর্ষের ফরম পূরণ করতে গেলে তার জালিয়াতির বিষয়ে আমাদের সন্দেহ হয় এবং প্রক্টর অফিসকে অবহিত করি।এদিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে অপেক্ষমান তালিকায় থাকা শিক্ষার্থী মোফসেনা ত্বাকিয়ার কাছ থেকে টাকা নিয়ে ভর্তি চেষ্টায় জড়িত থাকার অভিযোগে শিক্ষার্থী মো. আল-আমিন হোসেন শাহেদকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বুধবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিসিপ্লিন বোর্ডের মিটিংয়ের পর রাত ৯টার দিকে এক জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবু বকর সিদ্দিক।মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরের কাছে আল আমিনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগে মোফসেনা ত্বাকিয়া বলেন, কলা ও মানবিক অনুষদের অপেক্ষমান তালিকা থেকে উপাচার্য কোটায় (মুক্তিযোদ্ধা) জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগে ভর্তি করানোর লোভ দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে আল-আমিন।রেজিস্ট্রার আবু বকর সিদ্দিক জানান, জালিয়াতির সাথে সম্পৃক্ত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় অভিযুক্ত ওই শিক্ষার্থীর নামে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মামলা করবে।বহিষ্কৃত ওই ছাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের ৪২তম আবর্তনের ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

ভুয়া পরিচয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগে এক বছর ক্লাস এবং পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ঘটনায় অভিযুক্ত মোফসেনা ত্বাকিয়াকে অভিভাবকের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।এ ঘটনার অধিকতর অনুসন্ধানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক রাশেদা আক্তারকে প্রধান করে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।বুধবারের সিন্ডিকেট সভা থেকে তদন্ত কমিটিকে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।মোফসেনা ত্বাকিয়া ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সি ইউনিটে (কলা ও মানবিক অনুষদ) মুক্তিযোদ্ধা কোটায় অপেক্ষমান ছিলেন। ভর্তি না হয়েও পরবর্তীতে ওই ছাত্রী জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগে ৪৬ তম আবর্তনের শিক্ষার্থীদের সাথে এক বছর ক্লাস ও অনুশীলনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে আসছিলেন।

 

বিস্তারিত...
dhaka-times-ad-space
dhaka-times-ad-space
dhaka-times-ad-space

ফিলিপাইনে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ২০

ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে সোমবার ক্রিসমাস ডে’র অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২০ তীর্থযাত্রী নিহত হয়েছে। খবর এএফপি’র।

 

পুলিশ জানায়, ম্যানিলার প্রায় ২শ’ কিলোমিটার উত্তরের আগু শহরে একটি বড় বাসের সাথে ছোট বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণহানির এ ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় ছোট বাসের অপর নয় যাত্রী আহত হয়েছে। বড় বাসটিতে ১৫ জন যাত্রী ছিল।

 

শহরের কাছের একটি বিখ্যাত ক্যাথলিক চার্চের কথা উল্লেখ করে পুলিশ কর্মকর্তা ভানাসা আবুবো এএফপি’কে বলেন, তারা মানাওয়াগে পান উৎসবে যোগ দেয়ার চেষ্টা করছিল।

 

উল্লেখ্য, শত শত বছরের পুরনো আওয়ার লেডি অব মানাওয়াগ চার্চ প্রধানত ক্যাথলিক ভক্তদের কাছে একটি জনপ্রিয় তীর্থ স্থান।

বিস্তারিত...
dhaka-times-ad-space
dhaka-times-ad-space
dhaka-times-ad-space
  • আগামী নির্বাচনে নৈরাজ্য করতে দেওয়া হবে না
  • ‘৬ মাসে ১২২ দশমিক ৬৪ একর রেলভূমি অবৈধ দখলমুক্ত’
  • গাসিক নির্বাচনে মাঠে নেমেছে প্রার্থীরা
  • ‘অপরাধ স্বীকার করেছি, আমি ভর্তি জালিয়াতির শিকার’
  • স্লিম হওয়ার জন্য শত শত মেয়ে ইয়াবায় আসক্ত
  • শুক্রবার সকালে জিয়ার মাজারে যাবেন খালেদা জিয়া
  • ছাত্রকে পেটানোর অভিযোগে শিক্ষক আটক